রাজনীতিও কোয়ারেন্টাইনে!

আড়াই মাসে মহামারী রূপ ধারণ করা নভেল করোনা ভাইরাস একে-একে সবকিছুতেই আঘাত হানছে। রাষ্ট্রীয়, সরকারি-বেসরকারি, সামাজিক, পারিবারিক ও সাংস্কৃতিক বহু পূর্বনির্ধারিত অনুষ্ঠান স্থগিত বা বাতিল হয়ে গেছে।

করোনার প্রভাব পড়েছে অর্থনীতি, পর্যটন শিল্প, বিমান ও ক্রীড়াঙ্গনেও। বাংলাদেশে করোনা ভাইরাসে তিন জন শনাক্ত হওয়ার পর এর সরাসরি প্রভাব পড়েছে জীবাণুুনাশক পণ্য থেকে শুরু করে নিত্যপণ্যের বাজারে।

দেশের রাজনৈতিক অঙ্গনও রেহাই পায়নি করোনার ছোবল থেকে। মাঠ থেকে রাজনীতিকে ঘরে তুলে দিয়েছে এই ভাইরাস। বলতে গেলে দেশের রাজনীতিও এখন চলে গেছে ‘হোম কোয়ারেন্টাইনে’।

করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগসহ রাজনৈতিক দলগুলো সব ধরনের সভা-সমাবেশ বা জনসমাগম স্থগিত করে দিয়েছে। আগামী এপ্রিল পর্যন্ত দলের সভা, সমাবেশ, আলোচনা সভা, সেমিনার স্থগিত রেখেছে আওয়ামী লীগ।

বুধবার অনুষ্ঠিত দলের এক যৌথসভা শেষে এই ঘোষণা দেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

রাজনীতির ময়দানে আওয়ামী লীগের মূল প্রতিপক্ষ বিএনপিও দলের কারাবন্দি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি দাবিতে এবং অন্যান্য ইস্যুতে বিক্ষোভ, সভা-সমাবেশ, মিছিল ও মানববন্ধনসহ সব ধরনের কর্মসূচি পালন থেকে আপাতত বিরত থাকছে।

তবে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের ও বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর দুই জনই বলেছেন, সীমিত পরিসরে এবং ক্ষেত্র বিশেষে ঘরোয়াভাবে দলের সাংগঠনিক কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে।

সংসদের প্রধান বিরোধীদল জাতীয় পার্টিও (জাপা) দলের পূর্বনির্ধারিত বেশকিছু কর্মসূচি কাটছাঁট করেছে। আগামীকাল শনিবার সিলেট জেলা জাপার সম্মেলন হওয়ার কথা থাকলেও করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব বিবেচনায় নিয়ে তা স্থগিত করেছেন জাপা চেয়ারম্যান জি এম কাদের।

আগামী ২০ মার্চ দলের প্রয়াত চেয়ারম্যান এইচ এম এরশাদের জন্মদিন উদযাপনেও জাপা নেতাকর্মীদের বড়ো সমাগমে না গিয়ে দোয়া-মাহফিলের মতো সংক্ষিপ্ত কর্মসূচি গ্রহণ করেছে।

গতকাল বৃহস্পতিবার জাপা চেয়ারম্যানের বনানী কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত প্রেসিডিয়াম সদস্য, কো-চেয়ারম্যান ও সংসদ সদস্যদের যৌথসভা শেষে পার্টির মহাসচিব মসিউর রহমান রাঙ্গা সংবাদ ব্রিফিংয়ে বলেন, ‘বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষ্যে সুবিধামতো সময়ে আলোচনা ও দোয়ার আয়োজন করবে জাপা। তবে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণের কারণে এখনই এ ব্যাপারে সময়সূচি নির্দিষ্ট করা যাচ্ছে না।’

গতকাল রাজধানীসহ সারা দেশে মানববন্ধন কর্মসূচি পালনের কথা ছিল ওলামা-মাশায়েখদের। তবে করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব প্রতিরোধের অংশ হিসেবে তারা গতকাল কর্মসূচি বাতিল করেন।

এছাড়া আজ শুক্রবার চরমোনাই পীরের ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ দেশের প্রতিটি থানায় বিক্ষোভ মিছিল করার ঘোষণা দিলেও সেটি হচ্ছে না। অন্যান্য রাজনৈতিক দল, বাম ও ইসলামী সংগঠনসমূহও বিভিন্ন কর্মসূচি স্থগিত বা বাতিল করেছে।

করোনা ভাইরাসের প্রভাব পরিলক্ষিত হচ্ছে আসন্ন চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন (সিসিসি) নির্বাচন এবং পাঁচটি সংসদীয় আসনের উপনির্বাচনের প্রচার-প্রচারণায়ও।

আগামী ২৯ মার্চ সিসিসি এবং একইদিন বগুড়া-১ ও যশোর-৬ আসনে উপনির্বাচন। আর ২১ মার্চ ঢাকা-১০, বাগেরহাট-৫ ও গাইবান্ধা-৩ আসনে উপনির্বাচন। তবে এসব নির্বাচনে প্রার্থীদের প্রচারণায় বেশ ভাটা পড়েছে।

করোনাভীতির কারণে প্রার্থীদের গণসংযোগ ও পথসভায় আগের মতো লোকজনের সমাগম নেই। এতে ভোটার খরার আশঙ্কা করছেন সিসিসি নির্বাচন ও উপনির্বাচনে প্রার্থীরা।

করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত দেশের তালিকায় বাংলাদেশও যুক্ত হওয়ায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উদ্যাপনে জাতীয় প্যারেড গ্রাউন্ডে ১৭ মার্চ মূল অনুষ্ঠান হচ্ছে না।

আগামী ২৬ মার্চ মহান স্বাধীনতা দিবসে জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে কুচকাওয়াজ এবং মুক্তিযোদ্ধা সমাবেশও গতকাল স্থগিত করা হয়েছে।

মুজিববর্ষ উপলক্ষ্যে আগামী ২২ ও ২৩ মার্চ জাতীয় সংসদের বিশেষ অধিবেশন বসছে। তবে করোনা ভাইরাসের কারণে এই বিশেষ অধিবেশনে বিদেশি অতিথিদের আগমন স্থগিত করা হয়েছে।

১৯ মার্চ সংসদ ভবনের দক্ষিণ প্লাজায় যে বড়ো অনুষ্ঠান হওয়ার কথা ছিল সেটিও স্থগিত। শিশু মেলার আয়োজনও স্থগিত করেছে সংসদ সচিবালয়। তবে বঙ্গবন্ধুর বর্ণাঢ্য জীবনের ওপর আলোকচিত্র প্রদর্শনী কর্মসূচি বহাল রাখা হচ্ছে বলে গতকাল ইত্তেফাককে জানিয়েছে স্পিকারের কার্যালয়।

ইত্তেফাক

Please follow and like us:
error0
Tweet 20
fb-share-icon20
error

Enjoy this blog? Please spread the word :)