ইসরাইলের স্বীকৃতি নিতে সুদানকে ট্রাম্পের নতুন কৌশলে চাপ

আরব আমিরাত ও বাহরাইন ইসরাইলকে স্বীকৃতি দিয়ে ইহুদি দেশটির সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক করার পর একই পথে হাঁটতে সুদানকে চাপ দিচ্ছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

নভেম্বরের ৩ তারিখে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের আগেই এই স্বীকৃতি আদায় করতে মরিয়া ট্রাম্প প্রশাসন। খবর বিবিসির।

যুক্তরাষ্ট্রে ইহুদি লবি খুবই শক্তিশালী। ফলে দুটি আরব দেশ- বাহরাইন ও আরব আমিরাতের পর নির্বাচনের আগে আরেকটি আরব দেশের সঙ্গে ইসরাইলের সম্পর্ক স্বাভাবিক করতে পারলে ট্রাম্প নির্বাচনে বাড়তি সুবিধা পেতে পারেন।

বর্তমানে সুদান আর্থিক সংকটে রয়েছে। দীর্ঘদিনের নিষেধাজ্ঞার কারণে অর্থনৈতিক মন্দায় এবার ‘মরার ওপর খাঁড়ার ঘা’ হয়ে দেশটিতে দেখা দিয়েছে মারাত্মক বন্যা। এ অবস্থায় অর্থনীতিতে ধস নেমেছে এবং তৈরি হয়েছে খাদ্য ঘাটতির আশঙ্কা।

এ সুযোগকে কাজে লাগিয়ে সুদানের কাছ থেকে ইসরাইলের স্বীকৃতি আদায় করে নিতে চাইছে যুক্তরাষ্ট্র ও ইসরাইল। সুদানের নাম সন্ত্রাসবাদী দেশের তালিকা থেকে সরানোর বিনিময়ে এই স্বীকৃতির শর্ত দেয়া হয়েছে।

দীর্ঘদিনের এক নায়ক ওমর বিন বশিরকে ক্ষমতা থেকে সরানোর পর বর্তমান বেসামরিক প্রধানমন্ত্রী আবদাল্লাহ হামদককে এই প্রস্তাব দিতে আগস্ট মাসে খার্তুম যান মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও।

গণতন্ত্রে উত্তরণ সন্ত্রাসী রাষ্ট্রের তালিকা থেকে বের হওয়ার জন্য সুদানের আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি বাণিজ্য-বিনিয়োগের দরকার। ইসরাইলকে স্বীকৃতি দেয়ার ক্ষেত্রে অবশ্য সুদানি প্রধানমন্ত্রী জেনারেলদের ভিন্নমত রয়েছে।

Please follow and like us:
error0
Tweet 20
fb-share-icon20
error

Enjoy this blog? Please spread the word :)